Thursday, February 9, 2017

এগ্গো মানজে তা হুরোল-আন আহজেইএ

চীন দেজঅর এগ্গো পজ্জন। ভালকদিন বজর আগঅর লেঘা। বুওএই নাঙে একজনে ২২০০ বজর আগে এ গল্পবো লিক্কে।শিক্কে ল’বার মতঅ গল্প।
তা হুরোলআন আহজেইনেই ত্যা বেগঅরে সন্দেহ গরে
এগ্গো মানজে গাচ তা হুরোলআন আহজেইএ। হুরোল্ত্যআনদোআ ত্যা দারবো গাচ কাবিদঅ। তা হুরোলআন ত্যা ভালক জাগাত তোগেই চেলঅ। হালিক ন পেলঅ। কুদু ফেলেই ইচ্চে না কন্না চুর গুরি তা হুরোলআন নেজেইএ সিআন লোইনেই ত্যা চিদে গুরি চেলঅ। তা ঘরঅ কুরে এগ্গো গিরে থেদঅ। তারার এগ্গো গুরো শঅ এলঅ। আদিক্কেগুরি ত্যা তা ঘরঅ কুরে গুরো শঅবোরে দিঘিলঅ। তা মনান ভজমান সন্দেহ সন্দেহ গুজ্জে মন এলঅ। ত্যা মনে মনে সন্দেহ গুরিলঅ, তা ঘরঅ কুরে এ গুরো শ’বো-ই তা হুরোলআন চুর গুজ্জে। সিত্তুন ধুরি ত্যা সে গুরো শ’বোরে সন্দেহ চোঘে চে’দঅ। ত্যা দিঘিদঅ বা চিদে গত্ত, গুরো শ’বো চেহারাআনঅ চুরঅ ধক, আহদেদেও চুরঅ ধক, কধা কয়দেও চুরঅ সা’আন। ত্যা দিন দিন তারে সন্দেহ চোঘে চাআ ধল্লঅ।
হালিক কিজুদিন পরে ত্যা ঝারঅত জেইনেই  ত্যা হুরোলআন পেলঅগোই। মোনো মাধাত জিদু ত্যা গাচ কাবিবাত্তেই জেদঅ সিদু ত্যা তা হুরোলআন পেলঅগোই।
ত্যা তা হুরোলআন পেবার পরে হুব হুজি উইয়্যে। সে পরেত্তুন ধুরি ত্যা গুরো শ’বোরে আর সন্দেহ নহ গরে।
বরঙ ত্যা দিঘিলঅ, বা চিদে গুরিলঅ। গুরো শ’বো দ বুউত গম! তারে দঅ চুরঅ ধক ন লাগে। তা কধা কঅনা.আহদানা. মুঅ ভাবসাব বেক্কানি ত্যা গম চোঘে দেঘা শুরু গুরিলঅ।
চিগোন শিক্কেমুলক এ গল্পবোর মানে অহলঅদে আমি আমা মনগজা গুরিনেই বেক চিদেআনি গুরি। আমি মনঅত আমনঅ ধুক্কেন চিদে বানি থেইনেই কারঅজনঅরে মাবি বা তারে আমনঅ চিদে ধগে চিদে গুরি। আমি কারঅরে সেনোত্তই বিচ্চেচ বা অবিশ্বাস জেই, কারঅরে ত্যা জিদিক্কেন নয় সিদিক্কেন চিদে গুরি।
আমা হিল চাদিগাঙঅ রাজনীতি কধাইও ধুরি! আমি দি দ’লে তিন দলে কুজ্জ্যা বাজেই চিগোন কনঅ সমস্যাত্তেই। মরামরি মারামারি গুরিদেই সন্দ বা সন্দেহ গুরিনেই।
আরোগ্গো গল্প কধা ইওত কঙঅর। একজনে মাস্তর এলঅ। ত্যা এগ্গান বিদ্যা শেঘেদঅ। ধরা জোক সিআন গুপন বা গোপন বিদ্যা। ত্যা নিজেই নিয়ম বানেদঅ, শৃঙ্খলা থিগ গত্তঅ। আর যারা বিদ্যা শিঘা এদাক তারারে ত্যা সে নিয়মআনি কড়া গুরি পালেবার কদঅ। ত্যা শাস্তি দি’দঅ দড়মড় গুরি।
হালিক ত্যা দোরেদঅ, কনঅজনে তাত্তুন বেচ বিদ্যা শিঘিএ অহবঅ কি না। সেনোত্তেই ত্যা সতর্ক সজাগ গুরি থেদঅ। ত্যা দোলে দালে বিদ্যা শিক্ষ্যা শেঘেই ন দি’দঅ। জিবে তা উগুরে বা তাত্তুন বেচ শিক্যা লঅদঅ বা পারিদঅ বা পারিবার চে’দঅ সিবেরে ত্যা নানা বাবত্যা গুরি থ্যাগেবার চে’দঅ।
সিদিক্কেনগুরি তার দিন কাদিলঅ। তার বুউত শত্তুর অহলাক।
এ গল্পবোর এগ্গান শিক্যা অহলঅদে, একজনে জুনি আরঅগ জনঅরে শত্তুরঅ ধুক্কেন গুরি রিনি চাই, আর সেনজান গুরি তাল্লোই আচরণ গরে, বেবঅআর গরে তোইলে একসময় জ্যা বা জি’বে তারে বল দিবার কধা বা সহযোগী অহবার কধা কাইকুরে থ্যাবার কধা সিবে একসময় হয়তঅ তার শত্তুর ওই জাই বা শত্তুরঅ ধুক্কেন ওই জাই।
অকারণে সন্দ বা সন্দেহ গুরিনেই কারঅরে শত্তুর বানেনেই কী ই বা লাভ?!
যে লেঘাআনঅত্তুন এ লেঘাগান লিঘিবার উচ্চো পিওঙ: সিআরআই
But the fable ends with this: If you see the other guy as a potential rival and deal with him accordingly, you will turn a possible partner to a possible enemy.

লি চুমিঙে ভুদঅত্তুন স্যান্ডেলঅ বাড়ি হেলঅ

চিঙ নাঙে রাজা বংশঅর আমলঅত চীন দেজঅত সিনচেঙ নাঙে এগগান শঅরঅত এগগো মেজিসটেরেত এলঅ।  তার এগগো পো এলঅ। তা নাঙান এলঅ লি চুমিঙ। ত্যা হুব সাহজবলা এলঅ। ত্যা কিজু ন ডোরেদঅ।  তারার এগজন থাউইয়্যে কুদুম এলঅ। সিবে নাঙান ওয়াঙ চি লিআঙ। ওয়াঙ চি লিআঙঅর যে এগগান বড় ঘর এলঅ সিওত অমহদঅ বেচ ভুদ থেদাক ভিলি মানজে কোআকোহি গত্তাক।
লি চুমিঙ-এ এগবার সে বড় ঘরঅত বেড়েবাত্তেই গেলঅ।  তারে দিঘিনেই ওয়াঙ-এ ‍হুব হুজি অহলঅ। ত্যা তারে কঅলঅ-’আমা এ ঘরঅত তুই বেড়েবাত্তেই ইচ্চোচ শুনিনেই হুজি উইওঙ। ইদু তুই গাই গাই ন থেচ। ত সমারে তরে রেদোত সাঙেত দিবাত্তেই এগজন মানুজ পাধেই দিম। ‘ হালিক লি চুমিঙে তারে কলঅ, না না, মত্তুন সাঙেত র লাগিবঅ। মুই গাই থেই পারিম।। মত্তুন এ গরমঅ দিনওত গাই গাই থাগত্তে হুব গম লাগিবঅ। ইদু হুব হোলামেলা জাগা আঘে। চেরোকিত্তেত্তুন বুইয়্যের বাই। বারে বুইয়্যের হেই হেই থাগত্তে হুব গম লাগিবঅ।
তাত্তুন ভজমান গাই গাই থেবার পরানে কঅর। আর তাত্তুন ভুদ চেবার হুব পরানে কঅর। সেনোত্তেই ত্যা ওয়াঙঅরে সে কধাআন কুইয়্যে।
ওয়াঙেও আর কনকিজু ন কঅলঅ।  ভুদ কধাআন তুলিবার চেইনেইও আর ন তুলিলঅআর। দিন থাগত্তে ত্যা কামমো মানজোরে দিনেই ঘরঅ গুদি থিগথাগ গুরি দিলঅ। দোলে গুদি কাজেনেই ‍ঘুম জেবার বেবস্তা গুরি দিলঅ। সে সমারে সাচ সাচ অহদে সলাত বাত্তি জালেই দিনেই ত্যা তা আরেগ্গান থাইদে ঘরঅত জেলঅগোই।
ইন্দি লি চুমিঙে সাচ সাচ অহবার পর এগগো বাত্তি লোইনেই ঘরঅ চেরোকিত্তে হানঅক্কন গাই বেড়েই চেলঅ। ঘরআনঅ চেরেকিত্তে হালি জাগা বুউত আঘে। গাজবাজঅ কম। সেনোত্তেই চেরোকিত্তেত্তুন ফাগুনঅ বুইয়্যের এজে।  রেদোত রেদোত ত্যা এগ্গান জাগাত বুজিলঅ। চেরোকিত্তে কনঅজন নেই। কনঅ সারাশবদও নেই।  আস্তে গুরি আগাজঅত চানআন উদা শুরু গুজ্জে।  লি চুমিঙঅত্তুন এক্কা এক্কা ঘুম এজঙ এজঙ গরের। ত্যা ঘরঅ ভিদিরে সুমিলঅ। তারপরে গুদিত সুমি ঘুম জেবার জাগাত গেলঅ। ঘুম এত্তে সলাত ত্যা শুনিঅঅ হাঙদক দুরঅত কি েএগ্গগো লরের। থচ থচ গরের। গমে চেইনেই এক্কা এক্কা জুনঅ পঅরঅত ত্যা দিঘিলঅ টেবিলঅত ত্যা চা হেইনেই যে কাপপো রাঘেইয়্যে সিবে গাই গাই উগুরে উদানা শুরু গুজ্জে। সিবে গাই গাই পাক হেইনেই ঘুরা শুরু গুজ্জে। ইআন অন্য মানজে গাই গাই এগ্গান ঘরঅত দিঘিলে মুজজো জেবার অক্ত অহলাক্কুন। হালিক ত্যা এককেনাও ন ডোরেলঅ। চা কাপপো হাঙদক বাদে গাই গাই ঘুরানা থামিলঅ। সে পরে জিওত পোইরাক জালা উইয়্যে সে পততো উগুরে গাই গাই উদিনেই ঘুরানা শুরু গুরিলঅ। ত্যা সিন্দি হানক্কন রিনি চেই থেলঅ।  পোইরাকঅ পততো গুদি উগুরেন্দি হাক্কে ইন্দি হাক্কে উন্দি গাই গাই বেড়ানা শুরু গললঅ।
লি চুয়ােঙে সিআন চাআদে চাআদে কি গললঅ, সিন্দি চেইনেই চোক রাঙা গুরি কঅলঅ, ‘ভুদতো, তুই দ ভজমান বেচ গরর। মরে তুই ডর লাগেবার চত্তে, মরে তুই চিনঅচ? মুই কনঅ ভুদ ন ডোরাঙ সিআন তুই হবর ন পাচ?’ ইআন কোইনেই ত্যা বিচ্চোনওত্তুন একফাল দিইনেই ভুদতোরে ধুরিবাততেই গেলঅ।
ইন্দি ত্যা পিননেদ্যা কাবর চুবর কক্কে হুলি জিএগোই সিআনঅ মুক্কে তার হেআলঅ নেই। ত্যা কিএত কনঅ কাবর চুবর ন পিনিনেই ভুদতোরে ধরার চেরেত্তা গললঅ। ত্যা পোইরেক পততো মুক্কে জেইনেই ভুদতোরে ধুরিবাত্তেই গেলঅ। হানক্কন বাদে পেইরেকঅ পততো টেবিলঅত গাই গাই বুজিলঅ। ত্যা সে পোইরেকঅ পততো ধরা গেলা।
ধরা জাদে সলাত ত্যা থারেলঅ তারে কননা জানি তা বাঙ গালঅত এগেগো বড় ড়ুরি চুওর মারিলঅ। ভুদতো তারে চুওর মাজ্জে ভিলি ত্যা থারেলঅ। চুওর হেবার পরে ত্যা থারেলঅ, তা কিএত কনঅ কাবর চুবর নেই । তরাতাঙরি ত্যা বিচ্চোনওত্তুন কাবর চুবর আনিনেই পিনিলঅ। তারপর ত্যা ঘর দোর হুলিনেই বড়ে গেলঅ।  কুরে যে কামমো মানজো ঘর এলঅ তারে জাগেলঅ। তাত্তুন ত্যা এগগো বাত্তি আনিলঅ। বাত্তিবো জালেনেই ত্যা তা স্যান্ডেলআনি তোগা শুরু গুরিলঅ। হালিক এগ্গান স্যান্ডেল প্যালেও ত্যা আরেগ্গান স্যান্ডেল তোগেই ন পেলঅ।
রেত্তোবো ত্যা আরঅ বাত্তি মারেনেই ঘুম গেলঅ।  ভুদতো হালিক আর তা মুজুেঙে ভেদা ন দিলঅ আর। ত্যা বিন্নে পঅর অহয় সঙ ঘুম গেলঅ।
ঘুমঅত্তুন উদিনেই ত্যা গুদিবো দোলে রিনি চেলঅ। ত্যা দিঘিলঅ গুদিবো উগুরে চালঅ এক কিত্তে েএগগো কানা স্যারে তা স্যান্ডেলআন ধুলি ধুলি আগে। আর তা কুরে জে কামমো মানুচচো এলঅ ত্যা হেআল গুরিলঅ, লি চুমিঙঅ বাঙ গালঅত স্যান্ডেলঅ বারি ছবি ধুক্কেন লাগি আগে। তারা বুজিলাক, ভুদতো রেদো মাই লি চুমিঙঅরে তা নিজঅ স্যান্ডেলওই বাড়ি মাজজে।
মনেঅয় ভুদতো তারে কিচচু গুরি ন পারিনেই স্যান্ডেলঅ বাড়ি দিইনেই সে ঘরঅত্তুন জনমঅত্তেই ধেই জিএগোই। সে পরে আর সে ঘরঅত ভুদ দেঘা নহ জাই আর।

’যখন বঙ্গভবনে ছিলাম’- আলোকিত হবার একটি বই


বইটি তেমন বড় নয়, মাত্র একশ’ দুই পৃষ্ঠার। আর ঘটনা যে তেমন আছে তাও নয়। মাত্র কয়েকটি ঘটনার সমাহার। তবে এইসব ঘটনা জাতীয় জীবনের ইতিহাসের সাথে সম্পৃক্ত। দেশের ইতিহাসের অংশ এইসব ঘটনা। এই সকল ঘটনাবলী যা ছিল অপ্রকাশিত সাধারণের মাঝে সেগুলো আজ লেখকের লেখায় প্রকাশিত হয়ে ইতিহাসের অংশ হয়ে গেছে।
ব্রিগেডিয়ার শামসুদ্দীন আহমেদ, একজন সেনা কর্মকর্তা। তিনি একসময় বেশ কিছুদিনের জন্য বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতির ভবন বঙ্গভবন-এ চাকরিসূত্রে অবস্থান করেছিলেন। সেখানে তিনি যা দেখেছেন, যেভাবে ঘটনাবলীকে বিশ্লেষণ করেছেন তা-ই আমরা তাঁর লেখায় দেখতে পাই। বইটির মুখবন্ধ লিখেছেন প্রখ্যাত লেখক ও শিক্ষক কবীর চৌধুরী। মুখবন্ধের প্রথম অধ্যায়ে তিনি লিখেছেন- প্রাসঙ্গিকভাবে লেখক নানা বিষয়ের অবতারণা করেছেন যা বিভিন্ন রুচির পাঠককে বিভিন্নভাবে আকৃষ্ট করবে। লেখক-পরিবেশিত বঙ্গভবন নির্মাণের ইতিহাস, স্থাপত্যকৌশল, বিভিন্ন কক্ষের বর্ণনা, সাজ-সরঞ্জাম, বঙ্গভবনের অতিথি-আপ্যায়ন এবং সেখানে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন সরকারী ও আধাসরকারী অনুষ্ঠানাদির কথা ও আরো অনেক বিষয় কৌতূহলী পাঠককে তৃপ্ত করবে।
তিনি মুখবন্ধে লেখকের বিভিন্ন ঘটনার আরো অনেক বিষয় তিনি আলতো স্পর্শ করেছেন। তার মধ্যে জেনারেল এরশাদ ও তার স্ত্রী রওশন এরশাদের ‘পুত্রসন্তান লাভ, বঙ্গভবনের করিডোরের দেয়ালে নানাজনের ছবি থাকলেও শেখ মুজিবর রহমানের ছবি নেই, ‘হীন অনুকরণপ্রিয়তা’র কথা ইত্যাদি তিনি তুলে ধরেছেন।
এছাড়া এই বই পড়ে জানতে পারবেন একজন রাষ্ট্রপতি কিভাবে সামরিক আইন প্রশাসকের তল্পিবাহক হয়ে যান, জানতে পারবেন মুসলিমদের পবিত্র রমজান মাসে ইফতার আমন্ত্রণ নিয়ে জনগণের টাকায় বিলাসিতার কথা, অনেক নাম না জানা ব্যক্তির ক্ষমতার প্রতি মোহ, অর্থের প্রতি লোভ ইত্যাদির কথা। এবং একই সাথে নিশ্চয়ই অবিচল চারিত্রবৈশিষ্ট্য সম্পন্ন ব্যক্তিত্বের কথাও এতে পাবেন।
তবে আমার কাছে সেগুলো সাধারণ তথ্য হিসেবে মনে হয়েছে। লেখক অভিজ্ঞতা বর্ণনাসূত্রে সেসকল তুলে ধরেছেন। কিন্তু তার বই ঘটনার বর্ণনার চেয়ে বেশি। এখানে ঘটনার বর্ণনা গৌণ হয়ে যায় যখন তাঁর উদ্দেশ্য আমরা জানতে পারি। লেখক বইয়ের ভূমিকা অংশে যা লিখেছেন তা তুলে ধরছি-
আমার বক্তব্য উপস্থাপনার ত্রুটি থাকতে পারে। আমার ভাব প্রকাশভঙ্গি সঠিক নাও হতে পারে সব জায়গায়। কিন্তু আমি যা বলেছি এবং যা বলতে চেষ্টা করেছি তার মধ্যে কোন ক্রুত্রিমতা নেই। সব আমার মনের কথা। আমার হৃদয়ের কথা। জীবনে ভাল-মন্দ, সত্য-মিথ্যা, ন্যায়-অন্যায় সম্বন্ধে আমার ব্যক্তিগত ধ্যান ধারণা ও চিন্তাভাবনা আছে যা আমি খুব সযত্নে লালন করি।
সেই ধ্যান-ধারণা থেকেই তিনি তার কর্মজীবনে অন্যায় দেখেছেন, দেখেছেন লোভ লালসা, ক্ষমতার মোহ, চাটুকারিতা। তবে তিনি তারপরেও নিজের নীতি নৈতিকতাবোধে অবিচল থেকেছেন। ব্যক্তির স্বার্থ না ভেবে ভাবতে চেযেছেন দেশের কথা, নীতির কথা, এথিকসের কথা, দায়িত্ববোধের কথা।
তিনি বলছেন-
আমরা অনেকেই ব্যক্তিগত স্বার্থ ও ক্ষমতার লোভে দলনায়ক বা দলনেত্রীর কাছে, রাষ্ট্রনায়ক বা সরকার প্রধানের কাছে এক একজন ফুলসাইজ ‘জি হুজুর’, ‘গোলাম হোসেন’ এর ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে দ্বিধাবোধ করি না। ‘স্যার’ ও ‘ম্যাডাম’ কখনও ভুল করতে পারেন না এবং তাদের আদেশ অবশ্যই পালন করতে হবে, দেশ ও জনগণ জাহান্নামে যাক- এ ধরনের একটা মন মানসিকতা আমাদের মধ্যে প্রবলভাবে কাজ করছে।
তিনি ব্যক্তিগতভাবে তার চাকুরি জীবনে এই ধরনের ‘মন মানসিকতা’কে লালন করেননি বলে দাবি করেছেন।
তিনি তাঁর লেখায় তাঁর দৃষ্টিতে ন্যায়-অন্যায় ও ভাল-মন্দ ইত্যাদির বর্ণনা করেছেন। তিনি তাঁর বইয়ে লেখার শেষে যা মন্তব্য করেছেন সে দৃষ্টিভঙ্গি এবং একটি মহৎ আদর্শের কথা তিনি বলতে চেয়েছেন। তাঁর বইয়ের শেষ বাক্যটি হল-
আত্মমর্যাদাবোধ ছাড়া অন্য জাতির লেজুড় হয়ে কোন জাতি বড় হতে পারে না।
ভূমিকা অংশে তিনি লিখেছেন-
অনেকে বলেন, জনগণ ভাল হলে তাদের নেতা বা নেত্রীও ভাল হবেন। এটা ভুল ধারণা। জনগণকে ভাল করার জন্যই ভাল, সৎ, চরিত্রবান মেধাবী ও দেশপ্রেমিক নেতা-নেত্রীর প্রয়োজন।
তিনি তাঁর বইয়ে যে ঘটনাবলীর বর্ণনা করেছেন তা তাঁর এই মহৎ উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই করেছেন। তিনি তাঁর অভিজ্ঞতা দিয়ে যা দেখেছেন তার মূল্যায়ন করতে চেয়েছেন। আগামী দিনে যারা দেশের সত্যিকার ভাল মহৎ কিছু করার স্বপ্ন দেখেন ও তার বাস্তবায়নে সচেষ্ট থাকবেন তারা যেন এই অভিজ্ঞতা থেকে শিখতে পারে সে চেষ্টাই তিনি করেছেন। ১৯৯২ সালে লেখা এবং ১৯৯৩ সালে প্রকাশিত তার এই বই হয়তো নানা কারণে আরো অনেকের কাছে পৌঁছায়নি। তবে আমার ব্যক্তিগত অভিমত, এই বই হল তাদের জন্য যারা দেশের ভাল কিছু করার জন্য আপ্রাণ করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। এই বই পড়ে দেশের শাসনকামীরা উদ্বুদ্ধ হতে পারবেন মহৎ কিছু করতে। এই বই আরো অনেক পাঠকের দৃষ্টি আকর্ষণ করুক এই প্রত্যাশা রইল।

সত্যিকারের ভাল মনের মানুষ এবং একজন ব্যক্তিত্বসম্পন্ন লেখক বা মানুষের লেখা পড়লে আমরা সবাই উপকৃত হবো এই প্রত্যাশা। বইটির নাম ‘যখন বঙ্গভবনে ছিলাম’। প্রকাশক- আগামী প্রকাশনী। প্রথম প্রকাশ- ফেব্রুয়ারি, ১৯৯৩। বইটির পৃষ্ঠাসংখ্যা- ১০২।

তুরস্ক দেজঅর পজ্জন বা কিত্তেএ:: তিনআন প্রশ্ন’র জ্যোপ

নিবেদিত কল্যাণকামী শাসকই হলেন যোগ্য শাসক 

কোনো এক দেজঅর এগজন রাজার কধা।  রাজা ভালক বজর ধুরি রেজ্য শাজন গুরি ইচ্চে।  ইক্কো ত্যা বুড়ো ওই জিএগোই। আগঅ ‍ধুক্কেন মানজোর সুখ দুগ চেই ন পারে। নানান জনে নানান সুখ দুগ সমস্যার কধা লোইনেই এজন। তারার সমচস্যা চেবার মতন মন ত্যা আর দিই ন পারে আর। ইন্দি ত্যা ইক্কো চোঘেনদিও কম দ্যাঘে। কানএনদিও কম শুনে। কিইএতঅ আগঅ ধুক্কেন বল নেই। হানক্কন বোই  থ্যালে গাই গাই বল পঅরে। কিইএআন বলবলা ন পাই আর। ইঙিরি ত্যা আর রেজ্য শাজন গুরিবার মন দিই ন পারে। ত্যা ভালক দিন ধুরিনেই মনে মনে চিদে চাত্তা গুরিলঅ,এবারা রেজ্য শাজন তাজন বাদ দিইআ পুরিবঅ। তাআ তিননো পো আঘঅন। তারাত্তুন কারে রেজ্যর দায়িত্ব সারি দি পারা জেবঅ সিআন লোইনেই ত্যা চিদে গরা শুরু গুরিলঅ।  ত্যা মনে মনে কঅলঅ, তিননো পো’ওশা ভিদিরেত্তুন েবেগঅত্তুন বেচ গেআনি গুনি দায়িত্ববান একজনঅ আহদঅত রেজ্যর শাজন সারি দি পারিলে হুব গম ওলুন। বুড়ো কালঅত ঝারঅত দূরঅত জেইনেই ধরমঅ করমঅ গুরিনেই নিরিবিলি গুরি দিন কাদেই দিই পাললে হুব গম লাগিলু। 
ইআন চিদে গুরি ত্যা থিগ গুরিলঅ, তা তিননো পোওরে বুদ্দির পোরিক্কে লোও পুরিবঅ।  পোল্লেম ত্যা তা দাঙর পোওবোরে  দাগিলঅ।  তা দাঙর পোওবো বিন্নে মাদান তা বাবঅ ঘরঅত এলঅ। রাজা তা পোওবোরে কলঅ, ; পুত, মুই দ বুড়ো ওই জিওঙগোই।  তিনকাল দিগিলুঙ। আরঅ যা আঘে সিআন দ্যাক্কে দ্যাক্কে জেবঅগোই। মর বিদেয় লবার অক্ত ইচ্চে। মুই চাঙঅত্তে তোমা তিনজনঅ ভিদিরেত্তুন জে পোওবো বেচ গেআনি গুনি দায়িত্ববান তারে এই রেজ্যর ভার দি দিম। ‘ 
কধাআন শুনিনেই দাঙর পোওবোত্তুন হুব রাজা অহবার ধারাচ অহলঅ। ত্যা তা বাবঅরে হুব কোচ পানাআহ দেঘেলঅ। 
তা বাবে তারে কলঅ, পুত, মর তিনআন কধার জ্যোপ তত্তুন দিআ পুরিবঅ। জুনি তুই এই কধার জ্যোপ ধগেধাগে দিই পারঅচ, তোইলে মুই মনে গুরিম তুই রেজ্যর ভার লবার মতন জোগগো আঘচ। 
দাঙর পোওবো কলঅ, বাবাআ, তুই ত কধাআন পুজোর গুরি পারিবে। 
রাজা তারে কঅলঅ, আচ্চা কোই চাআদে, পিত্তিমি ভিদিরে চেরোকিত্তেন্দি সুবুল পিঙুল কী জিনিচ আঘে? আর বেগঅত্তুন বেচ ধাবা দিই পারেদে জিনিচচান কি? সে সমারে বেগঅত্তুন বেচ দোল জিনিচ পিত্তিমি ভিদিরে কুবান? 
দাঙর পোওবো কলঅ, বাবাআ, আ সিআন হুব উচ্চো কধা। ত প্রশনআন দ হুব উচ্চো! বেগঅত্তুন বেচ সুবুল পিঙুল জিনিচচ্চান অহলঅদে দ তুই! ত ধুক্কেন সুবুল গম ভালেদি চাউইয়্যে আ কন্না এ পিত্তিমিত আঘে!?
আর বেগঅত্তুন বেচ ধাবা দিইনেই জেই পারেদে ত ঘোড়াবো।  বেগঅত্তুন বেচ দোল অহলঅদে আমা মাআ, মানে ত মোককো। 
দাঙর পোওবোর জ্যোপ শুনিনেই রাজা তারে কিজু ন কলঅ। ত্যা কলঅ, থিগ আঘে তুই জাআ। 
সে পরে রাজা তা মাঝ্যাঙ পোওবোরে দাগি পাদেলঅ।  তারেও ত্যা দাঙর পোওবোরে জিআনি কুইয়্যে সিআনি কলঅ। তারপরে তারে সে তিনআন কধার জ্যোপ পুজোর গুরিলঅ। 
প্রশনআনি শুনিনেই তা মাঝ্যেঙ পোওবো তা বাবঅরে কলঅ। বাবাআ, ত কধার জ্যোপ দ হুব উচ্চো। তুই দ হবর পাআচ বাবাআ, মুই ওলুঙ্গে এ রেজ্যর বেগততুন বেচ গেআনি, গুনি আ দায়িত্ববান বুঝিয়ে সুঝিয়্যে।  সেনোত্তেই পিত্তিমি ভিদিরে মুই-ই ওলুঙগে চেরোকিত্তেন্দি সুবুল পিঙুল মানুচচো।  আর বেগঅত্তুন চে ধাবা দি পারেদে মঅ শিগের গুরিয়্যে কুগুরবো। তারে তুই বানা শিগেরবো দেঘেই দিলে অহয়, ত্যা ধাবা দিইনেই ঝাবাদাত শিগের ধুরি আনি পারে। তর তিন নম্বর প্রশনঅ আনঅর জ্যোপ অহলদে, ম মোককো অহলঅদে এই পিত্তিমির বেগঅত্তুন বেচ দোল মিলেবো।
রাজা তা মাঝ্যাঙ পোওবোর জ্যোপ শুনি কঅলঅ, থিগ আঘে পুত, ম প্রশনঅর জ্যোপ তত্তুন দ পেলুঙ। তুই ইক্কো বারে জা।  আর ত চিগোন পোওবোরে ম ঘরঅত এবাত্তেই কঅ। 
তা মাঝ্যাঙ পোওবো হুব আহঝি রুজি গুরি বাড়ে গেলঅ। ত্যা তা গুরো ভেইবোরে তা বাবঅ ঘরঅত দি পাধেলঅ। 
রাজা তা চিগোন পোওবোরে জেএ সে তিনআন কধার জ্যোপ ধুরিলঅ। 
তা পোওবোরে ত্যা কলঅ, মুই ত দি ভেইওরে জেএ তিনআন কধার জ্যোপ পুজোর গুজ্জোঙ। তারাত্তুন বেচ দোলে থিগগুরি  জুনি তুই জ্যোপ দিই পারঅচ, তোইলে তরে মুই রাজা বানেম। 
তারপর রাজা তারে সে তিনআন কধা পুজোর গুরিলঅ। 
তা চিগোন পোওবো তিনআন প্রশনঅ শুনিনেই হানক্কন মন দিনেই ভাবি চেলঅ।  তারপরে ত্যা তা বাবঅরে কলঅ, বাবাআ, এ পিত্তিমিত বেগঅত্তুন বেচ সুবুল পিঙুল জিনিচ অহলঅদে আমা হেতহিত্তিআনি, আমি যে চাষবাস গুরি সে জাগাআনি।  হেতহিত্তি গুরি আমি জে ফজল পেই সিআনি হেইনেই আমি বাজি থেই। সেনোত্তেই সিআনি অহলঅদে সুবুল পিঙৃল। 
তা বাবে তা বেগঅ চিগোন পোওবোত্তুন তার দার্শনিক কধার জ্যোপ শুনিনেই হুব হুজি অহলঅ। ত্যা কলঅ, বাআ বাআ, তুই দ হুব দোলে ম কধার জ্যোপ দি পাজ্জোচ। আচ্চা, তোইলে তা পরে কধার জ্যোপ দ্যা চাঙ। 
তা চিগোন পোওবো কলঅ, পিত্তিমিত বেগঅত্তুন বেচ ধাবা দিইনিই জেই পারেদে আমা চোক আর আমা মনআনি। আমা চোঘোন্দি আমি জিআন দিঘি সিআন ঝিমিদঅত দিঘি। আর আমা মনআনদোই আমি জিদু মনে কঅয় সিদু জেএই পারি। 
আর তনি নম্ব জ্যোপ অহলাদে, আমা পিত্তিমির বেগঅত্তুন বেচ দোল জিনিচচ্চান অহলদে আমা এই মোন মুড়ো সরা গাঙ নাল গাজ বাজে ঘিরি থিইয়্যে এই জাগাগান, আমা পিত্তিমিআন। 
আমা এই জাগাগানঅত বেক্কানি আঘে। রেত আঘে দিন আঘে। তারা আঘঅন, চান আগে, বেল আগে, জুনি আঘঅন, আঘঅন নানা বাবত্যা পেক পুক জুক অহরিঙ চঙরা আরঅ কতকিজু।  গোদ বজরবো ধারাদেঘোলি বারিজে, গরমকাল, জারকাল এজে। ইআনি বেক্কানি আঘে কিনে পিত্তিমিআন হুব দোল লাগে, পিত্তিমিআনঅত জনম ধুরি বাজি থেবার পরানে কঅয়। পিত্তিমি আন ইরিই জেবার পরানে ন কঅয়। 
বুড়ো রাজা তা চিগোন পোওবো কধা শুনিনেই হুব গম পেলঅ। ত্যা বুজিলঅ, তা এই চিগোন পোওবোই এ রেজ্য দোলেদালে চালেই পারিবঅ। তারপর ত্যা সময় গুরি রেজ্যর উজির নাজির পাইক পেয়াদা সইন্য সেনাবদি বেককুনোরে দাগিনেই তা চিগোন পোওবোরে তা রেজ্যর রাজা বানেলঅ। 
আর তা বাগি পোউনোরে ত্যা জাগা জুমি তেঙা পোইঝে দিলঅ। তারাও জ্যাএন নিজঅর ভালেদ গুরি পারঅন সে বেবস্তা গুরিলঅ। 
সে পরে ত্যা সুগে মুরি গেলঅ।
আর ইন্দি তা চিগোন পোওবো রেজ্যর বেগ প্রজাউনো সুখ দুঘঅর ভাগ লোইনেই বেগঅরে কোচ পেইনেই রেজ্য শাজন গরা ধুরিলঅ। দিনে দিনে তার শাজনঅর নাঙ পিত্তিমির চেরোকিত্তে ফুলঅ তুমবাচঅ ধুৃক্কেন সিদি পুরিলঅ। 

## পজ্জন বা কিত্তেএ’র নীতিকধা- যোগ্য উত্তরসূরী থিগ গুরিবাত্তেই উত্তরসূরীরে জোগ্য গুরিবার চেরেস্তা গরা পরে।